মঙ্গলবার, ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ঈদের পর বাজার মূলধনে পতন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঈদের পরের প্রথম সপ্তাহ পতন দিয়ে পার করেছে দেশের শেয়ারবাজার। সপ্তাহজুড়ে লেনদেনে অংশ নেওয়া অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমার পাশাপাশি কমেছে মূল্যসূচক। এতে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা কমে গেছে।বাজার মূলধন কমার পাশাপাশি গেলো সপ্তাহে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। ঈদের ছুটির কারণে গেলো সপ্তাহের রোব ও সোমবার (১০ ও ১১ জুলাই) শেয়ারবাজারে লেনদেন হয়নি। এতে গত সপ্তাহে শেয়ারবাজারে লেনদেন হয় মোট তিন কার্যদিবস। এ তিন কার্যদিবসেই শেয়ারবাজারে দরপতন হয়েছে। সেইসঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। এতে সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন কমেছে ১৪ শতাংশের বেশি।

গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ১৫ হাজার ৯৬০ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৫ লাখ ১৮ হাজার ৭৭২ কোটি টাকা। অর্থাৎ গেলো সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছে ২ হাজার ৮১২ কোটি টাকা।বাজার মূলধন কমার পাশাপাশি গেল সপ্তাহে ডিএসইতে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম কমার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ১১৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ২৩৪টির। আর ৩৯টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।এতে গেলো সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৪২ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট বা দশমিক ৬৭ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমে ৯ দশমিক ৯৯ পয়েন্ট বা দশমিক ১৬ শতাংশ। আর বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক গেলো সপ্তাহে কমেছে ১৯ দশমিক ৯২ পয়েন্ট বা দশমিক ৮৭ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমে ১ দশমিক ৮২ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ।প্রধান ও ডিএসই-৩০ মূল্যসূচকের পাশাপাশি গত সপ্তাহে ইসলামী শরিয়াহভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ্ সূচকও কমেছে। গেলো সপ্তাহে এ সূচকটি কমেছে ১০ দশমিক ৫৪ পয়েন্ট বা দশমিক ৭৬ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ১ দশমিক ১১ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ।গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৬৫৪ কোটি ১৪ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৭৬২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ১০৮ কোটি ৬৩ লাখ টাকা বা ১৪ দশমিক ২৪ শতাংশ।আর গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৯৬২ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ৩ হাজার ৮১৩ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন কমেছে ১ হাজার ৮৫১ কোটি ৪১ লাখ টাকা বা ৪৮ দশমিক ৫৪ শতাংশ।গত সপ্তাহে ডিএসইতে টাকার অংকে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১২৪ কোটি ৩ লাখ ৯ হাজার টাকা, যা মোট লেনদেনের ৬ দশমিক ৩২ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা আইপিডিসি ফাইন্যান্সের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১১২ কোটি ৮ লাখ ৪৬ হাজার টাকা। ৯৪ কোটি ৫৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে তিতাস গ্যাস।

এছাড়া লেনদেনের শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- ফরচুন সুজ, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, শাহিনপুকুর সিরামিক, গোল্ডেন সন, ফু-ওয়াং ফুড, জেএমআই হসপিটাল রিকুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং এবং ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সর্বশেষঃ