বৃহস্পতিবার, ৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বন্যায় আটকে পড়া ঢাবি শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করা হয়েছে

ঢাবি প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের চলমান বন্যায় আটকে পড়ে শহরের পানসী রেস্টুরেন্টে অবস্থান নেয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২১ শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে জেলা পুলিশ লাইন্সে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখান থেকে সেনাবাহিনীর উদ্যোগে তাদের সিলেট পাঠিয়ে দেয়া হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী এবং আটকে পড়াদের একজন শিক্ষার্থী শোয়াইব আহমেদ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অনুরোধে জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর হোসেনের নেতৃত্বে তাদের উদ্ধার করে সেখানে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ বিষয়ে আটকা পড়াদের একজন ঢাবি গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ২০১৮-১৯ সেশনের শিক্ষার্থী শোয়াইব আহমেদ বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে আমাদের পানসী রেস্তোরাঁ থেকে উদ্ধার করে জেলা পুলিশ লাইন্সে নিয়ে আসা হয়েছে। যদিও এখানে অবস্থা তেমন ভালো না। পুলিশ লাইন্সের ভেতরেও আমরা হাঁটু পানিতে আছি। দুপুরের খাওয়া দাওয়া করেছি, এখানে রাতের খাবারের ব্যবস্থা হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আর্মি কন্ট্রোলারের সাথে আমাদের কথা হয়েছে। উনারা স্পিডবোট পাঠাচ্ছেন। এরপর আমরা সিলেট চলে যাব। তারপর সেখান থেকে হয়তো ঢাকায় ফিরব। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, প্রক্টর ও আমাদের বিভাগের চেয়ারম্যান সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন।’

এর আগে উদ্ধারকাজের বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘ওদেরকে পানসী হোটেল থেকে উদ্ধার করে আরেকটি নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পুলিশ প্রশাসন তাদের নিয়ে যাচ্ছে।’

উল্লেখ্য, গত ১৪ জুন রাতে টাঙ্গুয়ার হাওর ভ্রমণের উদ্দেশ্যে সুনামগঞ্জ গিয়ে ১৫ জুন দিনের বেলা ঘোরাঘুরি করেন। তারপর পানি বাড়লে সেখানে তারা আটকে পড়ে যান। পরবর্তীতে তারা একটি ট্রলারে করে সুনামগঞ্জ শহরে পৌঁছান এবং পানসী রেস্টুরেন্টে অবস্থান নেন। সেখানে খাবার এবং বিশুদ্ধ পানির সংকটের পাশাপাশি বিদ্যুৎ, ফোনে চার্জ ও নেটওয়ার্ক না থাকায় আতঙ্কিত অবস্থায় ছিলেন তারা। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আটকে পড়া শিক্ষার্থী এবং সুনামগঞ্জের স্থানীয় প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করে তাদেরকে উদ্ধারের উদ্যোগ নেয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সর্বশেষঃ