রবিবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শেষ মুহূর্তেও জমজমাট গাবতলীর হাট

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাত পোহালেই ঈদুল আজহা। শেষ মুহূর্তেও জমজমাট রাজধানীর গাবতলী কোরবানির পশুর হাট। একের পর এক পশু কিনে হাট থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন ক্রেতারা। ছোট ও মাঝারি গরুর দাম কিছুটা বেশি হলেও বড় গরু অনেকটাই কম দামে বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। ব্যাপারীরা বলছেন, বড় গরু কেনার ক্রেতা কম। দামও বলছেন অনেক কম। তাই অনেকটা লোকসানেই বিক্রি করতে হচ্ছে। অন্যদিকে, ছোট গরু কিছুটা বেশি দাম দিয়েই কিনতে হচ্ছে ক্রেতাদের।শনিবার (৯ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর গাবতলী কোরবানির পশুর হাটে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়।

কিশোরগঞ্জের ভৈরব থেকে গরু নিয়ে আসা হেলো মিয়া বলেন, বড় গরুর দাম এবার খুবই কম। প্রতিটি গরু থেকে প্রায় এক লাখ টাকারও বেশি লোকসান হচ্ছে। ছয় লাখ টাকা দামের গরু বলেছে সাড়ে চার লাখ টাকা।নওগাঁ থেকে দুটি গরু নিয়ে আসা এক খামারি বলেন, ১১ লাখ টাকা দিয়ে দুটি গরু কিনেছি। এখন দাম বলছে একটা আড়াই লাখ, আরেকটা তিন লাখ।

যশোর থেকে গরু নিয়ে আসা মো. সৌমিক আহমেদ সাগর বলেন, এলাকায় ১২ লাখ টাকা দাম বলছিল। সেই গরু এখন পর্যন্ত মাত্র পাঁচ লাখ টাকা বলতেছে ক্রেতারা। বড় গরুর দাম খুবই কম দেখা যাচ্ছে এবার।

এদিকে, কামরাঙ্গীরচর থেকে কোরবানির পশু কিনতে এসেছেন ফাহিম। তিনি বলেন, দুপুরে আসলাম হাটে। শেষ দিনে গরুর দাম মোটামুটি ভালোই আছে। ছোট গরুর দাম কিছুটা বেশি মনে হয়েছে। তবে বড় গরু কেনার জন্য একটু সময় নিচ্ছি। বাজার কমতে পারে।বারেক মোল্লা নামে এক ক্রেতা কোরবানির গরু কেনার পর বলেন, এক থেকে দেড় লাখ টাকার বাজেট ছিল। এর মধ্যে ভালো গরুই কিনতে পারছি। দাম কমও না, আবার বেশিও না।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সর্বশেষঃ